অজানা বন্দরে জমাও পাঁড়ি..

ব্যক্তিমানুষের সীমাহীন ক্ল্পনার মাত্রা ছাড়িয়ে যাওয়া বিপুলায়তন মহাবিশ্বের একমাত্র সবুজ এবং প্রাণের উপস্থিতি এই গ্রহেই। অসংখ্য জীবের বসবাস এখানে। বহুকাল ধরে হাজারো সূর্যের উদয়াস্ত দেখতে দেখতে, ক্রমাগত বাড়ছে পৃথিবীর বয়স। অগনিত মানুষ আর জাতিসত্ত্বার উত্থান, পতন, লয়, সবই সে দেখে চলেছে নীরবে নিভৃতে। কারো আগমন হয় খুবই সাধারণ। আবার, কারোটা হয় দুর্বার। কারো হারিয়ে যাওয়ার আয়োজনে আনুষ্ঠানিকতার কোন কমতি থাকে না। আবার কেউবা, চুপটি করে ঘুমিয়ে পড়ে কোন জনশূণ্য পথের পাশে, অচেনা কোন গাছের ছাঁয়ায়।

জীবনের দীর্ঘ পথ পরিক্রমায় কেউ কেউ রেখে যায় গভীর পদচিহ্ন। পরবর্তীরা তাদের অনুসরণ করে চলে অন্ধের মতো। সকলের পক্ষে নতুন কোন পথ তৈরী করে, অনিশ্চিত ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে যাবার সাধ্য থাকে না বলেই হয়তো এমন অন্ধ অনুসরণ!

আমি এক  ছন্নছাড়া। অতি সাধারণ নিশ্চিন্ত সুখী মানুষদের মতো ছাঁ – পোষা জীবন আমার নয়। সেই সুখ অসহ্য বোধ হয়! নতুনের আবাহন, সবসময় তাঁড়িয়ে বেড়ায় আমাকে। জাতির জন্য, দেশ ও দশ এবং মাটি ও মানুষের জন্য কিছু একটা করবার অহর্ণীশ তাগিদ অনুভব করি প্রতিক্ষণ। কিন্তু, সাধ আর সাধ্যের সমন্বয় ঘটানো সম্ভবপর হয় না বলে, শেষ পর্যন্ত আর কিছুই করা হয়ে উঠে না। তবুও, স্বপ্নটা ঠিকই রয়ে যায় মনের গহীন কোন্ অন্দরে! আশায় বুক বাঁধি। হয়তো একদিন আমরা কিছু একটা করবোই।

নিত্যদিন নতুন পথে যাত্রা করছে আমার মহারথ। হয়তো, শীঘ্রই কোন অজানার বন্দরের উদ্দেশে পাড়ি দেবে আমার অশান্ত স্বপ্নতরী। এই প্রাণোচ্ছল, নবযাত্রার সঙ্গী হবার আমন্ত্রণ রইলো। যদি কখনো মনে হয়, কিছুই তো হচ্ছে না!, তখন না হয় চলে আসুন! জীবনকে বুঝে নিন জীবন দিয়ে….।

আলোঝলমলে চির আকাঙ্খিত সোনালী প্রভাতের অপূর্ব আলোয়, ঐতো দূরে দেখছি আমি নতুন প্রভাতের  আলোকরশ্মি !! বন্ধু.! আসবে তুমি আমার এই দুরন্ত কাফেলায়?

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।