নাগরিক মেঘপিয়ন এবং তাহাদের ফটোগ্রাফ

শ্রাবণের আকাশ নাকি বিক্রি হয়ে গেছে! জানিয়ে গেলো নাগরিক মেঘপিয়ন বর্ষামঙ্গলের চিরকূট পাঠিয়েছিলাম তোমায় পেয়েছো কি অবন্তিকা? পলাশী-নীলখেত কিংবা ছবিরহাটের ফুটপাথে জমে উঠা জলে কাগজের নৌকা ভাসানোর নিমন্ত্রণ তোমায় আসবে কি বালিকা? মেঘদল পথ হারিয়েছে এই নাগরিক বর্ষায় আকাশ আজকাল কোথায় থাকছে জানো কি তুমি?

মার্জিনে অন্তরীন শঙ্খনীল শব্দগুচ্ছ…

উৎসর্গ: দু’জন অসম্ভব প্রিয় মানুষকে। যারা কখনোই বুঝতে পারবে না, এই রুপালি গিটার তাদের কতো বেশি ভালোবাসে। অঝোর অশ্রুধারা জলের অঞ্জলী ছাড়া, তাদের আর কিছুই দেয়ার সাধ্য আমার নেই। আমার সব ভালোবাসা আর গান তোমাদের জন্যই। তোমরা না হয় নাইবা জানলে..। জীবন যখন শুকায়ে যায়, করুণাধারায় এসো..। =========================   নির্ভার.

বেহুলার ভাসান কিংবা পরাবাস্তবতার ভাবনামেঘ..

নারীর বুকের নদীতে মৃত্যুর মহোৎসব ! কখনো নারী সন্ধ্যার শঙ্খনাদ , প্রেমিক জনে তার সব … তাই সে প্রেমিক ! আগুন ,তৃষ্ণা ,কলা ,সর্বস্বান্তে ,যজ্ঞের মন্ত্রে বোধিদ্রুমে সে প্রেমিক !! উদ্ধৃতি (প্রেমিক ছায়েদা আলী) ==============   বড়ো সাঁধ জাগে.. হৃদয়ের গহীন অন্তপুরে.. এই সব সবুজ প্রেমিকের মতো করিয়া ..মানবজন্মের স-ব.