অগোছালো শব্দগুলো একটি কবিতা হতে পারতো..!

উৎসর্গ ::= আমার অসম্ভব প্রিয়, বড়ো আপিকে। যার জন্য অক্ষম এই আমি, কখনোই কিছু করতে পারি না।   একদিন গভীর রাত…। নিয়নের হলদেটে আলো.. আধখানা ঘোলাটে চাঁদ.. প্রহরীর সুতীক্ষ্ণ হুইসেল..সুনসান নীরবতা.. গর্জন তুলে কখনো দানবীয় ট্রাকের দূরের পথে চটজলদি দৌড়ে চলা..। ইত্যকার প্রাত্যহিক নানান রুটিন..। তারমাঝে… একাকী একটি ছেলে হাঁটছে.

ব্যথা ভারাক্রান্ত ঘুঙুরের মতো রাতভর বেজে যাওয়া এক দুঃখবিলাস!

এখন বাহিরে রাত দূর হতে ভেসে আসে রাতজাগা বিহগের বিষন্ন আর্তরব। কেউ কোনোদিন জানবে না কিসের বিরহে তার নির্ঘুম রাত কাটে; দু’চোখের পাতায় অস্থির কাপন। জানো কি তুমি, কি হারানোর বেদনায় কতো গভীর দুঃখ যাতনায় পাথরেরও বুক ভাঙে! দেখেছো কি তুমি, পাহাড়ের কোল বেয়ে সে কান্নার ঝর্ণা হয়ে অবিশ্রান্ত বয়ে.

বন্ধু তোমার তোমার চোখের মাঝে……..।

বন্ধু তোমার তোমার চোখের মাঝে বন্ধু তোমার তোমার চোখের মাঝে চিন্তা খেলা করে বন্ধু তোমার কপাল জুড়ে চিন্তা লোকের ছায়া বন্ধু তোমার নাকের ভাঁজে চিন্তা নামের কায়া বন্ধু আমার মন ভাল নেই, তোমার কি মন ভাল বন্ধু তুমি একটু হেসো, একটু কথা বলো বন্ধু আমার বন্ধু তুমি, বন্ধু মোরা ক’জন.

স্বপ্ন দেখবো বলে……..।

আমার খুব পছন্দের একটা গানের লিরিক। স্বপ্ন দেখবো বলে আমি শুনেছি সেদিন তুমি সাগরের ঢেউ-এ চেপে নীলজল দীগন্ত ছুঁয়ে এসেছ, আমি শুনেছি সেদিন তুমি নোনাবালি তীর ধরে বহুদূর বহুদূর হেঁটে এসেছ| আমি কখনও যাইনি জলে, কখনও ভাসিনি নীলে, কখনও রাখিনি চোখ, ডানামেলা গাঙচিলে| আবার যেদিন তুমি সমুদ্রস্নানে যাবে আমাকেও সাথে.