স্ট্রিট ফটোগ্রাফির অন্দরমহলে আপনাকে নিয়ে যাবেন আলোকচিত্রী মোঃ এনামুল কবির

মোঃ এনামুল কবির। ১২১ ক্লিকসের সাথে বিস্তারিত আলাপ করেছেন স্ট্রিট ফটোগ্রাফির বিভিন্ন রকমের সুক্ষ ও গভীর বিষয় নিয়ে। কথা বলেছেন নিজের আলোকচিত্রের ভিন্ন ধরণ ও যে বিষয়গুলো তার ফটোগ্রাফিকে নানাভাবে প্রভাবিত করেছে, সেসব নিয়ে। অনেকের মতো কীভাবে স্ট্রিট ফটোগ্রাফি তার কাছে বিশেষ ভালোবাসার একটি জায়গা হয়ে উঠলো, সেটা নিয়েও খোলাখুলি.

বাংলাদেশি ফটোগ্রাফার আবু রাসেল রনির সাথে আলাপ

আবু রাসেল রনি। বাংলাদেশের কুষ্টিয়া জেলায় জন্ম। চাকরী করেন একটি প্রাইভেট প্রতিষ্ঠানে। ফটোগ্রাফি নিয়ে ভীষণ আগ্রহী ও একাগ্রচিত্তের এই আলোকচিত্রী ২০১০ সাল থেকে ছবি তুলছেন। বাংলাদেশি অনেক ফটোগ্রাফার তার অনুপ্রেরণার উৎস। আমি পথে-ঘাটে ছবি তুলতে ভালোবাসি। ইচ্ছেমতো হেঁটে বেড়াতে এবং চারপাশে ছড়িয়ে থাকা অসংখ্য মুহুর্তগুলো ক্যামেরায় তুলে রাখা আমার কাছে.

Source_the_rivers_scams – PHOTO • P. SAINATH

অনুবাদ: খরাপীড়িত জনপদে পানির হাহাকার ও মহারাষ্ট্রে জলচুরির জালিয়াতি – পি সাইনাথ

মহারাষ্ট্রে পানি উন্নয়ন খাতে অর্থের বন্যা হওয়ার পরেও কেনো নদীগুলো ক্রমশ শুকিয়ে যাচ্ছে? কৃষ্ণা নদীর ভাটিতে পি সাইনাথের একটি ভ্রমণ বৃত্তান্ত তিনি সত্তরোর্ধ একজন স্ট্রবেরি চাষী। ওড়িষ্যা রাজ্যের পুরোনো মহাবালেশ্বরে নিজের ৩ একর জমিতে চাষাবাদ করেন। পানির প্রয়োজন মেটাতে পারিবারিক কূপ ছিলো নিজেদের। খরায় সেটি শুকিয়ে কুয়োর তলদেশ পাথরের মতো শক্ত.

জেরোনিমোর আত্মকথা; খন্ড-অনুবাদ

# “এখানে আমাদের এরিজোনার মতো পরিবেশ কিংবা মাটি নেই, যেসবের কথা আমার মনের মধ্যে গেঁথে আছে। আমাদের ছিলো দারুনসব চারণভূমি, সবুজ ঘাসে আচ্ছাদিত প্রেইরী, সারিসারি বৃক্ষরাজি, প্রাকৃতিক সম্পদ। যে ভূমি সর্বশক্তিমান শুধুমাত্র এপাচিদের জন্যেই তৈরী করেছেন। আমার নিজের দেশ! নিজের ঘর! আমার বাবার দেশ! যেখানে ফিরে যাওয়া কথা আমি এখন.

দ্যা ফ্লাইং ডাচম্যান, সমুদ্রের রহস্যময় জাহাজ

দ্যা ফ্লাইং ডাচম্যান (The Flying Dutchman) । পৃথিবীর সামুদ্রিক ইতিহাসের এক বিখ্যাত জাহাজের নাম। হাজার হাজার মাইল বিস্তৃত সাগরের পরিধি যেমন সীমাহীন। তেমনই সীমাহীন এর স্রোত আর ঢেউয়ের পরতে পরতে আটকে থাকা রহস্যের খতিয়ান ।  ফ্লাইং ডাচম্যান হচ্ছে সমুদ্রের এক অজানা রহস্যের নাম, কিংবদন্তির এক ভূতুড়ে জাহাজ। কখনো কোন বন্দরে.

তিন খন্ড বস্ত্র কিংবা একটি থ্রি কালার স্যুট!

তিন খন্ডের পোশাক মূল : আলী দেভ, তিউনেশিয়া ভাষান্তর : রাহিমা দেওয়ান = = =================== ১ এই মাস থেকে প্রথমবারের মতো পরিবারের অগ্রিম আয়-ব্যায় বিবরনীতে স্থান পেয়েছে আমিষজাত খাদ্যপণ্য-গোমাংশ। আমার জন্য রাখা হয়েছে ক্ষুদ্র অনুপূরক। যা ছিলো কল্পনাতীত। আমি জানি না, কেনো আমি আমার চিরায়ত আচরণবিধির বিপক্ষে অবস্থান গ্রহণ করলাম।.