নাগরিক মেঘপিয়ন এবং তাহাদের ফটোগ্রাফ

শ্রাবণের আকাশ নাকি বিক্রি হয়ে গেছে!
জানিয়ে গেলো নাগরিক মেঘপিয়ন
বর্ষামঙ্গলের চিরকূট পাঠিয়েছিলাম তোমায়
পেয়েছো কি অবন্তিকা?

পলাশী-নীলখেত কিংবা ছবিরহাটের ফুটপাথে জমে উঠা জলে
কাগজের নৌকা ভাসানোর নিমন্ত্রণ তোমায়
আসবে কি বালিকা?

মেঘদল পথ হারিয়েছে এই নাগরিক বর্ষায়
আকাশ আজকাল কোথায় থাকছে
জানো কি তুমি?

এইবারের তূর্ণা মেইলে পাঠাচ্ছি কিছু ফটোগ্রাফ
মেঘভারাক্রান্ত নগরীর মন খারাপের একেকটা মুহুর্ত
সযতনে তুলে রেখো আমার তোরঙ্গে..

পাড়ার মোড়ের রফিকের দোকানেও
ইদানিং জোনাকীর দেখা নেই
বৃষ্টির ঝাঁঝালো ঘ্রাণ এখন নিরুদ্দেশ
আকাশ নাকি এবার ক্রাশিং মিলে চলছে..?

ভালো থেকো বালিকা..আমার আকাশ তোমায় দিলেম
ইচ্ছেমতো বৃষ্টি নামিও..অঝোর ধারাজলে ভাসিও তোমার নগরী
ভালো থাকবে তো অবন্তিকা?

# ছবি কৃতজ্ঞতা: অজানা, ইন্টারনেট থেকে প্রাপ্ত।

(এক বন্ধুর অনুরোধে তার ফেসবুকের একটি ফটো এ্যালবামের নাম দিয়েছিলাম নাগরিক মেঘপিয়ন এবং তাহাদের ফটোগ্রাফ। তারপর মনে হলো লিখে ফেলা উচিত এর পেছনের ভাবনাগুলো। যে ভাবনাগুলো এ্ই নাম দিতে আগ্রহী করে তুললো আমাকে। হাবিজাবি অগোছালো এরকম চিন্তাগুলোকে কিছু শব্দে আটকে রাখার ব্যর্থ প্রচেষ্টা)

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

* ছবির অক্ষরগুলো উপরের ঘরে লিখুন